fbpx

Blog

Construction of Automobile

বর্তমানে গাড়ি বা অটোমোবাইল (Automobile) নিয়ে আমারা যেই ধরনের চিন্তা করতে পারি। সেই চিন্তা থেকেই কিন্তু এই অটোমোবাইল শিল্পের আবির্ভাব আর সেই অটোমোবাইল শিল্পটি এক দিনেই কিন্তু এতটা উন্নতি করতে পারে নি। এখন আমরা অটোনোমাস (Autonomus) নিয়ে ভাবতে শিখেছি। আমরা শিখেছি ইলেক্ট্রিক কার (Electric Car) নিয়ে চিন্তা করতে। তাই আজ আমরা আবার একটু নতুন করে চিন্তা করব। দেখব কিভাবে এই অটোমোবাইল গঠন করার সময় চিন্তা করতে হয়। যাকে কন্সট্রাকশন অফ অটোমোবাইল ( Constraction of Automobile) বলা হয়। 

এই অটোমোবাইল তৈরীতে প্রায় ১৫,০০০ পার্টস (Parts) ব্যবহার হয়েছে। আর এই প্রত্যেকটি পার্টস ই একটি আরেকটির সাথে কানেক্টেড (Connected) কিন্তু একেক টি পার্টস এর কাজ আরেকটির থেকে আলাদা। উদাহরন হিসেবে ব্রেক সিষ্টেমের (Brake System)কথা বলা যায়। ব্রেক প্যাডেল (Brake Padal) থেকে শুরু করে ব্রেক প্যাড (Brake Pad) পর্যন্ত কতগুলো পার্টস একে অন্যের সাথে কানেক্টেড। আর এই সব গুলো ফাংশন এর সম্মিলিত কাজই হল চলন্ত গাড়িকে ব্রেক করানো বা থামানো। 

মজার ব্যপার হল, এই গাড়ি সাইজে যত বড় বা যত ছোট হোক না কেন, বেশীর ভাগ পার্টসই একই থাকে। তবে সাইজ বা আকারের পার্থ্যক্য থাকে। এর বেশীর ভাগ পার্টস বর্তমান সময়ে ইলেক্ট্রিকালি কন্ট্রোল হয়ে থাকে। এর জন্য একটি (ECU) ই সি ইউ (Electrical Control Unit) থাকে। কিছু কিছু সময় এই (ECU) ই সি ইউ কে কম্পিউটার ও বলা হয়ে থাকে। 

এখন জেনে নেই কিছু প্রধান কম্পোনেন্ট এর নাম যা গাড়ি তৈরীর আগে মাথায় রাখতে হয়।

  • শুরুতেই মাথায় আসবে একটি ইঞ্জিন (Engine) বা এমন কিছু যেখান থেকে শক্তি উৎপন্ন হবে। আর সেই শক্তি দিয়ে গাড়ি চলবে। 
  • শক্তির উৎস ইঞ্জিন পাওয়া গেল। এখন সেই ইঞ্জিন থেকে শক্তিকে ড্রাইভ হুইল (Drive wheel) এ সরবরাহ করার জন্য প্রয়োজন পাওয়ার ট্রেন (Power Train)।
  • যেহেতু গাড়ি রাস্তায় চলে তাই রাস্তায় থাকা গর্তের কারনে ঝাঁকুনি হবেই । তাই এই ঝাঁকুনিকে প্রশমিত করার জন্য দরকার সাশপেনশন সিষ্টেম (Suspension System)।  
  • সাসপেনশন এর বিষয়টিতে ফোকাস দিতেই মাথায় চলে আসবে গাড়িটি কন্ট্রোল করতে হবে। তাই গাড়িকে কন্ট্রোল বা  সঠিক দিকে নিয়ন্ত্রন করার জন্য ষ্টিয়ারিং সিষ্টেমের (Steering System) প্রয়োজন। 
  • চলন্ত গাড়ীকে থামানোর জন্য এবং যেকোন সময় গাড়ির গতি নিয়ন্ত্রনের জন্য দরকার ব্রেক সিস্টেম। তাই ব্রেক সিস্টেম (Brake System) এর কথাটিও মাথায় রাখতে হয়। 
  • গাড়ির ইঞ্জিনকে স্টার্ট করার জন্য আমরা জানি স্টার্টিং মোটর (Starting Motor) এর প্রয়োজন। আর সেই স্টার্টিং মোটরকে চালানোর জন্য ইলেক্ট্রিসিটি প্রয়োজন। এছাড়াও গাড়িতে ব্যবহার হওয়া লাইট এবং অন্যান্য ইলেক্ট্রিক্যাল ইকুইপমেন্ট এর জন্যও এই ইলেক্ট্রিসিটি প্রয়োজন। তাই ইলেক্ট্রিক্যাল সিস্টেম (Electrical System) এর কথাও মাথায় রাখতে হয়। 
  • পরিশেষে দরকার বডি (Body)। যাকে ইঞ্জিন কম্পার্টমেন্ট বলা যেতে পারে। সাথে যাত্রীদের জন্য থাকবে আলাদা কম্পার্টমেন্ট। তবে সেটা ডিপেন্ড করবে কি ধরনের গাড়ি হবে সেটা। 
Share on facebook
Facebook
Share on google
Google+
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on pinterest
Pinterest

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Some Recent Posts

Car

What Is Gasoline

গাড়িতে ফুয়েল নেবার জন্য রেপুটেড ফিলিং স্টেশন খুঁজেন না এমন কাউকে পাওয়া ভারী কষ্টকর। কেন খোজা হয়। কারণ, ভালো মানের গ্যাসোলিন বা জ্বালানি গাড়ির ইঞ্জিন

Read More »
Car

Engine not Starting

আজ গাড়ির একটি কমন সমস্যা নিয়ে (Vehicle Common Problem) আলোচনা করা যাক। যেই সমস্যাটিতে পড়েন নি এমন খুব কম মানুষ ই আছেন। আর সেটি হল

Read More »
Car

Car Air-condition system

চিন্তা করে দেখুনতো,গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছেন দীর্ঘক্ষণ কিন্তু আপনার গাড়ির এসি টি নষ্ট বা কাজ করছে না। কেমন হতো সেটি? চিন্তা করতেই দম বন্ধ হওয়া একটা

Read More »